অনলাইন মিডিয়া এ্যাক্টিভিষ্টদের কারণে সমাজ বিস্ফোরন্মুখ হয়ে উঠেছে’

প্রকাশিত: ৭:২১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর যাতে চোর-বাটপার, গুন্ডা, বদমাশদের হাতে চলে না যায় সাংবাদিকদের সেদিকে তীক্ষ্ণ নজর রাখার আহবান জানিয়েছেন। তিনি সোমবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব সদস্যদের পরিচয়পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ আহবান জানান।

এসময় প্রেস ক্লাবের পরিচয়পত্র প্রদানের উদ্যোগের প্রশংসা করে তিনি বলেন, অনলাইন মিডিয়া এ্যাক্টিভিষ্টদের কারণে সমাজে আজ বিস্ফোরন্মুখ অবস্থা। দূর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি গ্রামে গ্রামে এখন অনলাইন টিভি চ্যানেল। আর এর বদৌলতে যে কেউই সাংবাদিক হয়ে গেছেন। অথচ তার মিনিমাম পড়াশুনা নেই, ভুল বানানে উল্টাপাল্টা লিখে যাচ্ছেন। এতে জনসাধারণ বিভ্রান্ত হচ্ছে, হয়রানীর শিকার হচ্ছে মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেন, যারা দায়িত্বশীল সংবাদকর্মী তাদের যদি পরিচয়পত্র না থাকে তাহলে জনসাধারণ, সরকারী কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ এবং জনপ্রতিনিধিদের অসুবিধায় পড়তে হয়। তাছাড়া প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানেরই তার কর্মীদের পরিচয়পত্র থাকাটা জরুরী। এতে বিভ্রান্তির পরিমাণ কম হয়। তিনি প্রেস ক্লাবের সকল ভালো উদ্যোগে পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
প্রেস ক্লাব সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামির সভাপতিত্বে প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার, জেলা তথ্য অফিসার মো. আসাদুল্লাহ কাউসার।

প্রেস ক্লাব কার্য নির্বাহী পরিষদ সদস্য মো. মনির হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন প্রেস ক্লাব সাধারন সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন।

পরে প্রধান অতিথি প্রেস ক্লাব সদস্যদের হাতে পরিচয়পত্র তুলে দেন। অনুষ্ঠানে প্রেস ক্লাব সদস্যরা ছাড়াও জেলার গনমাধ্যমকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেছেন, অনলাইন মিডিয়া এ্যাক্টিভিষ্টদের কারণে সমাজ আজ বিস্ফোরন্মুখ অবস্থা। দূর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি গ্রামে পর্যন্ত অনলাইন টিভি চলছে। দেখা যাচ্ছে এর বদৌলতে যে কেউই সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে বেড়াচ্ছে। অথচ তার মিনিমাম পড়াশুনা নেই, ভুল বানানে উল্টাপাল্টা লিখে চলছে। এতে জনসাধারণ বিভ্রান্ত হচ্ছে, হয়রানীর শিকার হচ্ছে।

তিনি সোমবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব সদস্যদের পরিচয়পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

প্রেস ক্লাবের এই উদ্যোগের প্রশংসা করে মোকতাদির চৌধুরী বলেন,যারা দায়িত্বশীল সংবাদকর্মী তাদের যদি পরিচয়পত্র না থাকে তাহলে জনসাধারণ, সরকারী কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ এবং জনপ্রতিনিধিদের অসুবিধায় পড়তে হয়। তাছাড়া প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানেরই তার কর্মীদের পরিচয়পত্র থাকাটা জরুরী। এতে বিভ্রান্তির পরিমাণ কম হয়।

তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর যাতে চোর-বাটপার,গুন্ডা বদমাশদের হাতে চলে না যায় সেদিকেও তীক্ষ্ণ নজর রাখার আহবান জানান সাংবাদিকদের। তিনি প্রেস ক্লাবের সকল ভালো উদ্যোগে পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

প্রেস ক্লাব সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামির সভাপতিত্বে প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার, জেলা তথ্য অফিসার মো. আসাদুল্লাহ কাউসার।

প্রেস ক্লাব কার্য নির্বাহী পরিষদ সদস্য মনির হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন।

পরে প্রধান অতিথি প্রেস ক্লাব সদস্যদের হাতে পরিচয়পত্র তুলে দেন। অনুষ্ঠানে প্রেস ক্লাব সদস্যরা ছাড়াও জেলার গণমাধ্যমকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।